দেশজুড়ে

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে নওগাঁয় নেয়া হচ্ছে নানা পদক্ষেপ

  জাগোকন্ঠ ১ জুলাই ২০২২ , ৪:১৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:

দিন যতই যাচ্ছে ততই সারা দেশের সঙ্গে নওগাঁতেও বাড়ছে সড়ক দূর্ঘটনা। প্রায় প্রতিদিনই সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ও প্রাণ হারাচ্ছে অসংখ্য মানুষ। দূর্ঘটনায় মোটর বাইক ও তিন চাকার ছোট বাহনগুলোতে আরোহীরা বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। ইদ, পূজা, পহেলা বৈশাখ, বিশ্ব ভালোবাসা দিবস ও অন্যান্য উৎসবে দূর্ঘটনা আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে। বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) নওগাঁ জেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত এক আলোচনায় এই চিত্র উঠে আসে। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসান পিএএ।

সভায় অংশ নিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমানসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, শিক্ষক প্রতিনিধি, সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, পরিবহন মালিক এবং শ্রমিক নেতৃবৃন্দ ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগণ বক্তব্য তুলে ধরেন। সড়ক দূর্ঘটনা রোধে পুলিশের চেকপোষ্ট জোড়দার করার কথা জানানো হয় বৈঠকে।

বক্তারা বলেন, জেলার ১১টি উপজেলায় বিভিন্ন সড়ক ও মহাসড়কে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর কারনে দূর্ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশেষ করে নতুন মাত্রা পাওয়া নওগাঁ-রাজশাহী মহাসড়কে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রতিনিয়তই মৃত্যুর মিছিল লেগেই রয়েছে। এছাড়া অবৈধ যানবাহন ও অদক্ষ চালকের কারনে সড়ক দূর্ঘটনা বাড়ছে। বিপরীতে কোন পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না। ট্রাক, ট্রাক্টর ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা চালকদের বেপরোয়া আচরনের কারনে প্রতিনিয়ত মানুষ দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। সড়ক বিভাগের উদাসীনতায় ফুটপাত দখল হয়ে রাস্তা সরু হয়ে যাচ্ছে। পরিবহন শ্রমিকরা মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালাচ্ছেন কি-না কোন কিছুই দেখভাল করা হচ্ছে না। সভায় দীর্ঘ আলোচনা শেষে বেশ কিছু পদক্ষেপ নেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহন হয়।

জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসান পিএএ বলেন, সড়ক দূর্ঘটনা প্রবন এলাকা চিহ্নিত করন, দূর্ঘটনার কারণ সমূহ ও এর প্রতিকারে সুপারিশ মালা ও কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হবে। এ জন্য জেলার ১১টি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাদের স্ব-স্ব এলাকার প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। এই প্রবণতা কমাতে হলে প্রশাসনের পাশাপাশি বেসরকারি ভাবেও বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। সব চেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে নিজ নিজ জায়গা থেকে সচেতন হতে হবে। এছাড়াও সামাজিক ভাবেও সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। সড়কে চলার সময় সকল চালককে সব সময় মনে রাখতে হবে যে সময়ের চেয়ে জীবনের মূল্য অনেক বেশি।

আরও খবর: