আইন-আদালত

৩ শিশুকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ইনস্ট্রাক্টর এ কে এম শাহানুরের জামিন স্থগিত

  জাগোকন্ঠ ১৫ জুন ২০২২ , ১১:৩৭ পূর্বাহ্ণ

যশোরের শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের (বালক) তিন শিশুকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় প্রতিষ্ঠানটির ফিজিক্যাল ইনস্ট্রাক্টর এ কে এম শাহানুর আলমকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন ৮ সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন চেম্বার আদালত।

বুধবার আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম এ আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ। আসামির পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট এ কে এম ফয়েজ।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ বলেন, গত ৯ জুন বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ এ কে এম শাহানুর আলমকে জামিন দিয়েছিলেন। পরে তার জামিন স্থগিত চেয়ে চেম্বার আদালতে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ।

মামলা ও আদালত-সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, কেন্দ্রের প্রধান প্রহরী নূর ইসলামকে মারপিটের জেরে ২০২০ সালের ১৩ আগস্ট যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের ১৮ শিশুকে কর্মকর্তাদের নির্দেশে নির্যাতন করা হয়। এতে বগুড়ার শিবগঞ্জের তালিবপুর পূর্বপাড়ার নান্নু প্রামাণিকের ছেলে নাঈম হোসেন, খুলনার দৌলতপুরের মহেশ্বরপাশা সেনপাড়ার রোকা মিয়ার ছেলে পারভেজ হাসান ওরফে রাব্বি ও বগুড়ার শেরপুরের মহিপুর গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে রাসেল হোসেন মারা যায়। গুরুতর আহত হয় আরও ১৫ জন।

এ ঘটনায় পারভেজ হাসানের বাবা রোকা মিয়া যশোর জেলার কোতোয়ালি থানায় ১৩ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। তদন্ত শেষে ওই মামলায় ১২ জনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র জমা দেয় পুলিশ।

অভিযুক্ত ১২ জনের মধ্যে চারজনই যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের কর্মকর্তা। তারা হলেন- সাময়িক বরখাস্ত হওয়া কেন্দ্রের সাবেক তত্ত্বাবধায়ক (সহকারী পরিচালক) আবদুল্লাহ আল মাসুদ, সহকারী তত্ত্বাবধায়ক (প্রবেশন অফিসার) মাসুম বিল্লাহ, ফিজিক্যাল ইনস্ট্রাক্টর এ কে এম শাহানুর আলম ও সাইকো সোশ্যাল কাউন্সিলর মুশফিকুর রহমান।

আরও খবর: