অর্থনীতি

বিএসসির মুনাফা বেড়েছে তিনগুণ, লভ্যাংশ বেড়েছে ৮ শতাংশ

  জাগো কণ্ঠ ডেস্ক ২ নভেম্বর ২০২২ , ৪:৫৩ পূর্বাহ্ণ

২০২১-২২ অর্থবছরে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সরকারি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের (বিএসসি) ২২৫ কোটি ৭৫ লাখ ১৮ হাজার ৫৯২ টাকা মুনাফা হয়েছে। এর আগের বছরের তুলনায় মুনাফা বেড়েছে তিনগুণের বেশি। এদিকে মুনাফা বাড়ায় গতবছরের তুলনায় শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৮ শতাংশ বেশি লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটি।

বুধবার (২ নভেম্বর) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

শেয়ার প্রতি মুনাফার ১২ টাকা ৮০ পয়সা করে ১৯৫ কোটি ২৩ লাখ ৪৮ হাজার ৫১২ টাকা থাকবে কোম্পানির হাতে।

এর আগের বছর কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি মুনাফা হয়েছিল ৪ টাকা ৭২ পয়সা। অর্থাৎ ৭১ কোটি ৯৯ লাখ ৬৫ হাজার ৩৮৮ টাকা। সে হিসাবে ২০২১ সালের তুলনায় ২০২২ সালে মুনাফা বেড়েছে ১৫৩ কোটি ৭৫ লাখ ৫৩ হাজার ২০৩ টাকা। ওই বছর শেয়ারহোল্ডারদের ১২ শতাংশ নগদ অর্থাৎ ১ টাকা ২০ পয়সা করে লভ্যাংশ দিয়েছিল কোম্পানি।

পর্ষদ ঘোষিত লভ্যাংশ শেয়ারহোল্ডারদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভার (এজিএম) দিন নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ৬ ডিসেম্বর। ওইদিন বেলা ১১টায় এজিএম অনুষ্ঠিত হবে। এ সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২৩ নভেম্বর।

মুনাফার বিষয়ে কোম্পানি সচিব লাল হোসেন বলেন, আন্তর্জাতিক সমুদ্রপথে বিএসইসি সুষ্ঠুভাবে জাহাজ পরিচালনা করেছে। ফলে গত বছরের তুলনায় এবার ব্যবসা বেড়েছে। আশা করি আগামী বছরগুলোতেও এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।

তিনি বলেন, বিদায়ী বছরে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এছাড়াও ২টি ক্রুড অয়েল মাদার ট্যাংকার এবং দুটি মাল্টিপারপাস মাদার বাল্ক ক্যারিয়ার কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিএসসি চীন সরকারের সহায়তায় দেশটি থেকে দুটি ক্রুড অয়েল মাদার ট্যাংকার ও দুটি মাদার বাল্ক ক্যারিয়ার জাহাজ কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এজন্য কোম্পানিটির মোট ২৪ কোটি ১৯ লাখ ২০ হাজার মার্কিন ডলার ব্যয় হবে। এর মধ্যে দুটি ক্রুড অয়েল মাদার ট্যাংকার আনতে ব্যয় হবে ১৫ কোটি ১৯ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার। আর দুটি মাদার বাল্ক ক্যারিয়ার আনতে ব্যয় হবে ৮ কোটি ৯৯ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার।

১৯৭৭ সালে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটি সাত বছরের মধ্যে এ বছর সর্বোচ্চ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এর আগে ২০২১ সালে ১২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছিল। তার আগে ২০১৬ সালে ১২ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ ঘোষণা করেছিল। বাকি বছরগুলোতে ১০ শতাংশ নগদ অর্থাৎ শেয়ার প্রতি ১ টাকা করে মুনাফা দিয়েছে শেয়ারহোল্ডারদের।

১৫২ কোটি ৫৩ লাখ টাকার পরিশোধিত মূলধনের কোম্পানিটির সরকারি মালিকানা রয়েছে ৫২ দশমিক ১০ শতাংশ। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের মালিকানা রয়েছে ২৪ দশমিক ৩০ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মালিকানা রয়েছে ২৩ দশমিক ৬০ শতাংশ। আজ বুধবার শেয়ারটি লেনদেন শুরু হয়েছে ১৩৩ টাকা ৪০ পয়সায়।

আরও খবর: