অর্থনীতি

মার্কিন ডলারের বিপরীতে টাকার মান বাড়ল

  জাগোকন্ঠ ১৪ জুন ২০২২ , ১:২৪ অপরাহ্ণ

মার্কিন ডলারের বিপরীতে টাকার মান বেড়েছে।একদিনের ব্যবধানে ডলারের বিপরীতে টাকার দাম বেড়েছে ১৩ পয়সা, যা গতকালও (সোমবার) ডলারের বিপরীতে টাকার দাম ৫০ পয়সা কমিয়ে ৯২ টাকা ৫০ পয়সা করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক।

মঙ্গলবার আন্তঃব্যাংকে প্রতি এক ডলার ৯২ টাকা ৩৭ পয়সা বিক্রি করছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কোভিড-পরবর্তী আমদানি ব্যয় বাড়ায় বাজারে ডলারের চাহিদা বেড়ে গেছে। এই বাড়তি চাহিদা সামালাতে রিজার্ভ থেকে ডলার বিক্রি করা শুরু করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

দেশে পণ্য আমদানির চাপ ব্যাপক হারে বেড়েছে। ফলে বাড়তি চাহিদার কারণে লাফিয়ে বাড়ছে ডলারের দাম। বিপরীতে মান হারাচ্ছে টাকা।

ব্যাংক কর্মকর্তারা বলছেন, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় দেশে আমদানি চাপ বেড়েছে। এছাড়া করোনার টিকা আমদানির অর্থও পরিশোধ করতে হচ্ছে। ফলে এসব দায় পরিশোধ করতে গিয়ে বাড়তি ডলারের প্রয়োজন হচ্ছে। অন্যদিকে প্রবাসীদের পাঠানো আয় বা রেমিট্যান্স গত তিন মাস ধারাবাহিকভাবে কমছে। আবার প্রত্যাশা অনুযায়ী রফতানি আয় কম। সব মিলিয়ে বাজারে বৈদেশিক মুদ্রার চাহিদার তুলনায় সরবরাহে ঘাটতি দেখা দিয়েছে। এতে টাকার বিপরীতে বাড়ছে ডলারের দাম।

গত ২ জুন প্রতি মার্কিন ডলারের দাম ৮৯ টাকা ৯০ পয়সা নির্ধারণ করে দিয়েছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। যা তার আগে ছিল ৮৯ টাকা ছিল। গত ৭ জুন ডলারের দাম ৫ পয়সা বাড়িয়ে ৯২ টাকা করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। কিন্তু ডলারের বিপরীতে টাকার মান কমে যাওয়া ঠেকানো যাচ্ছিল না। এক মাসে ডলারের বিপরীতে টাকার মান ৫ টাকা ৪১ পয়সা কমেছে।

পরে ডলারের দাম নির্ধারণ করে দেওয়া থেকে সরে আসে বাংলাদেশ ব্যাংক। দাম ঠিক করতে ব্যাংকগুলোর হাতেই ছেড়ে দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

আর দাম ঠিক করার এখতিয়ার ব্যাংকগুলোর হাতে ছাড়ার পর থেকেই ডলারের দাম ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে। আর বিপরীতে মান হারাচ্ছে টাকা। চলতি বছরে শুধু ডলারের বিপরীতে অন্তত ১১ বার মান হারিয়েছে টাকা। কিন্তু মঙ্গলবার টাকার মান বাড়ল কিছুটা।