জাতীয়

দলটাকে বাঁচান: নেতাকর্মীদের কাদের

  জাগোকন্ঠ ২৬ অক্টোবর ২০২২ , ৪:২১ অপরাহ্ণ

জাগোকণ্ঠ প্রতিবেদকঃ
দলের বিভিন্ন স্তরে আর্থিক লেনদেনের খবরে ক্ষোভ প্রকাশ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, আপনারা দলটাকে বাঁচান। টাকা-পয়সার লেনদেন, এগুলো বন্ধ করেন। কমিটি করতে টাকা লাগবে, এটা বিএনপি করতে পারে। আওয়ামী লীগ এ চর্চা করতে পারে না।
আজ রাজধানীর খিলগাঁও মডেল কলেজ প্রাঙ্গণে আওয়ামী লীগের খিলগাঁও থানা এবং ১, ২, ৩ ও ৭৫ নম্বর ওয়ার্ডের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
দলের নিজেদের মধ্যে ঝগড়াঝাটি ও গীবত বন্ধ করতেও আহ্বান জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, টাকা-পয়সা নিয়ে মনোনয়ন প্রদান, এই চর্চা চিরতরে বন্ধ করতে হবে। এটা দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার নির্দেশ।
তিনি বলেন, টাকা-পয়সার লোভ দলীয় সভাপতির নেই। বঙ্গবন্ধু পরিবারের নেই। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদেরও বঙ্গবন্ধু পরিবারের সততা-সাহস থেকে শিক্ষা নিতে হবে।
দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, জানি আপনারা কষ্টে আছেন। জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে, জ্বালানির দাম বেড়েছে, মানুষের কষ্টও বেড়েছে। গরিব মানুষের কষ্ট, নিম্ন ও স্বল্প আয়ের মানুষের কষ্ট আমরা বুঝি। শেখ হাসিনা বোঝেন। তার (প্রধানমন্ত্রীর) রাতের ঘুম হারাম হয়ে যায় আপনাদের কষ্টের কথা ভেবে। এই সংকট থেকে উত্তরণের জন্য তিনি দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।
বিএনপির সাম্প্রতিক সমাবেশ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, দু-তিনটা সমাবেশ করে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের ভাবটা এমন যে, ক্ষমতায় এসেই গেছেন। এত সোজা নয়। খেলা হবে। রাজপথে খেলা হবে।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ফখরুল সাহেব, কোথায় আছেন, আসুন একটু খিলগাঁওয়ে। এক দিন আগে জনসভা করেছেন। এর তিন ভাগের একভাগ লোকও হয়নি। জনস্রোত তো এখনো দেখেননি। ডিসেম্বরে সমুদ্রের গর্জন শুনতে পাবেন।
বিএনপির মাঠে নামার কথা শুনলে বাস-লঞ্চের মালিকরা ভয় পায় বলে দাবি করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক। তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত অগ্নি সন্ত্রাস করে বাসে, লঞ্চে, গাড়িতে আগুন দিয়ে জীবন্ত মানুষ পুড়িয়েছে। বাস পুড়িয়েছে, লঞ্চ পুড়িয়েছে, রেল পুড়িয়েছে। তাই বিএনপির সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কারণে তারা মাঠে নামলে বাসের মালিকরা ভয় পায়। লঞ্চের মালিকরা ভয় পায়। আবার যদি আগুন দেয়? আবার যদি মানুষ পুড়িয়ে মারে। সে জন্যই পরিবহন বন্ধ করে দেয় মালিকরা।
যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, তারা (বিএনপি) আবারও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে। সমাবেশের নামে তারা বিভিন্ন স্থানে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করে। তাদের প্রতিহত করতেই হবে। এ জন্য তিনি নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ এবং সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।
ঢাকা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম বলেন, বিভিন্ন সময় আমরা বিভিন্ন মাধ্যমে দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাই। অনেকের নামে ভূমিদস্যু, চাঁদাবাজি এবং দখলদারের অভিযোগ পাই। আগামীতে এদের দল থেকে বের করে দিয়ে যোগ্য ও দক্ষ নেতৃত্বকে দিয়ে দল গঠন করা হবে। তাহলে আগামী নির্বাচনে আমরা শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে পারব।
খিলগাঁও থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি লায়ন শরীফ আলী খানের সভাপতিত্বে সম্মেলন উদ্বোধন করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী। এ ছাড়া সম্মেলনে সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী, মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

আরও খবর: