রাজধানী

সিটি করপোরেশন মার্কেট ও ৪ নম্বর ওয়ার্ড সুন্দর ভাবে পরিচালনা করছেন; ওমর ফারুক

  জাগোকন্ঠ ৭ জুলাই ২০২২ , ৯:২২ পূর্বাহ্ণ

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) মিরপুর ৪ নং ওয়ার্ড কমিনিউটি মার্কেটের সভাপতির দ্বায়িত্বে পাশা পাশি উক্ত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জামাল মোস্তফার নির্দেশে এলাকার বিচার ও অন্যান্য কার্যক্রম গুলো সুনামে সাথে দেখাশোনা করে আসছেন, সাবেক কৃষিও সমবায় সম্পাদক বাংলাদেশ আওয়ামিলীগ কাফরুল থানার ঢাকা মহানগর উত্তর ও বাংলাদেশ নেভীর (অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) মো. ওমর ফারুক।
তার কর্মকান্ডে এলাকার লোকজন খুশি। লোকজনদের ভাল ভাবে দিকনির্দেশনা দিয়ে মানুষের ভালবাসা অর্জন করেছেন তিনি।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সভাপতি মো.ওমর ফারুক তার অফিসে আসা এলাকার লোকজনকে বিভিন্ন ধরনে কাজের পরামর্শ দিচ্ছেন।
আহাদ নামে এক ব্যক্তি তার বয়স্ক ভাতার কর্ড করানোর জন্য অফিসে আসেন। তাকে বলেন, বয়স্ক ভাতার কাজটি করাতে কত টাকা লাগবে। ওমর ফারুক বলেন, বয়স্ক ভাতার কর্ড করতে আমার কাছে কোন টাকা লাগে না। তখন ওই ব্যক্তি তাকে দোয়া ও প্রশংসা করে বলেন “আপনি একজন ধার্মিক সাদা মনের মানুষ” আল্লাহ আপনাকে দীর্ঘ আয়ু দান করুক।
আমরা বসে থাকা অবস্থায় জামিলা বেগম নামে এক নারী তার মেয়ের জম্ম নিবন্ধন করানো কথা বলেন। তিনি বললেন এখানে জম্মনিবন্ধন করা হয় না। তখন ওমর ফারুক ওই নারী’কে পরামর্শ দিলেন জন্ম নিবন্ধন নিবন্ধনকরা হয় মিরপুর ২ নম্বর সিটি করপোরেশন অফিসে। আমি আপনার কাগজ পত্র ঠিক করে দেওয়ার সহযোগিতা করতে পারি, এতে আমাকে কোন টাকা দিতে হবে না। তাতে ওই নারী অনেক খুশি হয়ে বললেন ‘এই জগতে এখনো ভালো মানুষ আছে।’
এরকম প্রতিদিন শত শত নারী-পুরুষ এসে তার কাছ থেকে পরামর্শ ও সহযোগিতা নিচ্ছেন।
অভিযোগে জানা যায়, স্হানীয় কিছু কুচক্রী মহল ওমর ফারুকের নামে সমাজের কাছে সম্মান হানী ও হেও প্রতিপূর্ণ করার জন্য বিভিন্ন মহলে নালিশ করে আসছেন চক্রটি।
চক্রটি তাদের সার্থ হাসিল করতে না পেরে বিভিন্ন ধরনের অপপ্রচার চালিয়ে আসছে। অভিযোগে আরও জানা যায়, এই অপপ্রচারের সঙ্গে জড়িত রয়েছে স্হানীয় সেলিম খাঁ, মো. জাহাঙ্গীর, সানাউল্লাহ ও আলামিন ঠাকুর।
এ ব্যাপারে ওমর ফারুকের কাছে ওই ব্যক্তিদের সম্পকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার সঙ্গে কারো বিরোধ নেই। তার পরেও তারা আমার সম্পকে বিভিন্ন জনের কাছে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। “আল্লাহ্ তাদেরকে হেদায়েত দান করুক।” আল্লাহ কাছে আমি এই প্রার্থনা করি।”
ওমর ফারুক আরও বলেন, আমার বাবার নাম আশরাফুল হক হাতীয়া উপজেলার সভ্রান্ত পরিবারের লোক। আমরা আওয়ামিলীগ পরিবার তার জন্য আমাদের বৈশিষ্ট হলো মানুষকে ভালোবাসা, খেদমত করা ও তাদের পাশে থাকা। তারই ফলশ্রুতিতে দীর্ঘ ৫০/৬০ বছর যাবত এই পরিবার এলাকার প্রতিনিধিত্ব করে আসছে।
উক্ত এলাকায় মেম্বার ও মহিলা কাউন্সিলর হিসেবে আমাদের পরিবারের সদস্যরা আছেন। আমি বর্তমানে ৪ নং ওয়ার্ড কমিনিউটি মার্কেটের সভাপতি ও কাউন্সিলরের নির্দেশে এলাকার বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কার্যক্রমে মাধ্যমে জনগনের সেবা করে যাচ্ছি। আমি যতদিন যিবিত থাকবো ততদিন মানুষের সেবা করে যাবো ইনশাল্লাহ্৷

আরও খবর: