দেশজুড়ে

দেশে এখন হাহাকার নেই: কৃষিমন্ত্রী

  জাগোকণ্ঠ ডেস্ক ১০ এপ্রিল ২০২২ , ৫:৫১ অপরাহ্ণ

ছবি: সংগৃহীত

কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, দেশে এখন হাহাকার নেই। কিন্তু মিডিয়া খুললেই দেখি কয়েকজন অর্থনীতিবিদ ও মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ভাঙা রেকর্ড বাজাচ্ছেন, দেশ ডুবে গেল, মানুষ না খেয়ে মরছে।

তিনি বলেন, দেশে কোনো দুর্ভিক্ষ চলছে না। মানুষের কষ্ট হচ্ছে সেটা আমরা স্বীকার করি। সবজিসহ কোনো কোনো জিনিসের দাম বেশি। কিন্তু দেশে কোনো হাহাকার নাই, মানুষ না খেয়ে নেই।

রোববার (১০ এপ্রিল) দুপুরে ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়ন চর মনশা গ্রামের সবুজ বাংলা কৃষি খামারে সমন্বিত ফল বাগান ও পেঁয়াজের মাঠ পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, এ বছর সরকারকে ২৮ হাজার কোটি টাকা প্রনোদনা দিতে হবে। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে টিএসপির দাম ৬০ থেকে ৭০ টাকা, পটাশিয়ামের দাম ৪০ থেকে ৫০ টাকা। দেশে প্রতিকূলতার মধ্যেও সারের দাম এক টাকা বাড়ানো হয়নি। আমরা কৃষকদের ফ্রিতে বীজ দিচ্ছি। বর্তমান সরকার যে প্রণোদনা দিয়েছে, পৃথিবীর ইতিহাসে কোনো দেশের সরকার এমন প্রণোদনা দেয়নি।

তিনি বলেন, ভোলার মাটি উর্বর। এখানে আমাদের বিজ্ঞানীরা ধান, পেঁয়াজ, বেগুন, আম লিচুসহ বেশকিছু ফসলের নতুন নতুন জাত আবিষ্কার করেছেন। সেসব জাতের উৎপাদনশীলতা বেশি। এগুলো যদি সফলভাবে ফলানো যায়, তবে কৃষক লাভবান হবেন, দেশের উৎপাদন বাড়বে; পাশাপাশি বিদেশ থেকেও আমদানি করতে হবে না। এসব নতুন জাত সারাদেশে ছড়িয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে আমরা একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। আশা করি, এ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে দেশে ঘাটতি থাকবে না।

মাঠ পরিদর্শনকালে আরও উপস্থিত ছিলেন কৃষি সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বেনজীর আলম, বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (ব্রি) মহাপরিচালক মো. শাহজাহান কবীর, ভোলা জেলা প্রশাসক তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী, ভোলা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মমিন টুলু,জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুল কাদের মজনু মোল্লা প্রমুখ।