1. mdmobinali112@gmail.com : admin2020 :
  2. mdalimobin112@gmail.com : Ali Mobin : Ali Mobin
বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০১:১১ পূর্বাহ্ন

সাজানো মামলায় ফেঁসে গেল ভোজনখালীর অনুপম বর্মন | জগোকণ্ঠ

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১ মে, ২০২০

স্বপন কুমার রায়, খুলনা ব্যুরো প্রধানঃ
পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের অধীন ঢাংমারী স্টেশন কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে  ২৭ এপ্রিল সোমবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১২.৩০টারদিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এক অভিযান পরিচালিত হয়। উক্ত অভিযানে টাইগার টিমের উজ্জ্বল সরদার, জগোদিস,স্বপন ওমর হাওলাদারের উপস্থিতিতে অনুপম বর্মনকে তার নিজ ঘর থেকে ঘুমন্ত অবস্থায় ডেকে তোলা হয়। এ সময় ঘরের দরজায় দাড়িয়ে থাকা রাজু ও রানা একটি ছোট ব্যাগ ঘরের বাহিরের পাশ থেকে এনে বনরক্ষিদের কাছে দেয়। তারপর বনরক্ষিরা অনুপমকে দিয়ে পুকুরের কোনা থেকে ১/২ টুকরা মাংস তুলে নেয়। এ সময় বনবিভাগের ট্রলার মাঝি তরুন মন্ডল ঘটনা দেখে প্রতিবাদ করলে ওমর হাওলাদার,রাজু ও নাজমুল ক্ষিপ্ত হয়ে তার চোখ তুলে নেবে মর্মে উদ্যত হয়। তখন উজ্জ্বল সরদার ও প্রতিবাদ করে বলে এ ঘটনায় অনুপম জড়িত হতে পারে না। এটা এদের সাজানো নাটক। তখন উজ্জ্বল সরদারের উপর ও চড়াও হয়ে ওঠে। এক পর্যায়ে মোঃ আনোয়ার বলেন, সব তো বুঝেছি কিন্তু তার বাড়িতে মাল পাওয়া গেছে তাই অফিসে নিয়ে যাই। টাইগার টিমের সদস্য ও জনগনের ভাষ্য সরোজমিনে ভিটিআরসি টাইগার টিম ও স্হানীয় ব্যক্তিদের সাথে আলাপ কালে স্হানীয় ও ভিটি আরসির টাইগার টিমের সভাপতি নিশীত রায় পিতা দেবেন রায়,ভিটিআরসির সদস্য উজ্জল সরদার পিতা সামসুল হক সরদার,,ভিটিআরসির সদস্য জগদিশ মন্ডল, সহ আলাউদ্দিন মীর, স্বপন বর্মন, আবদুল কুদ্দুস মাতবর নুরমোহম্মদ শেখ, শেখর রায়ের সাথে আলাপ কালে বলেন সুন্দর বনে মধু কাটার উদ্দ্যেশে ওমর হাওলার পিতা মোসলেম হাওলার, রানা শেখ পিতা ফিরোজ শেখ,অহিদ শেখ পিতা ওয়াজেদ শেখ সহ অনুপম বর্মন সুন্দর বনে প্রবেশ করে ঝোপের মধ্যে ফাদে বাধা অবস্হায় একটি হরিন দেখতে পেয়ে তারা জবাই করে। ওমর হাওলাদার ঐ মাংসের অধ্যেক দাবি করলে অন্যরা সমান ভাবে ভাগ করার সিদান্ত নেয় এবং সমান ভাগে ভাগবেটায়ারা করলে ওমর এটা মেনে নিতে পারিনী তাই সড়যন্ত্র ভাবে অনুপমের দোকানের বারন্দায় মাংস রেখে তাকে সড়যন্ত্র ভাবে ফাসানো হয়েছে বলে জানিয়েছে টাইগার টিমের সদস্যরা,হরিন মারার হোতা হচ্ছে ওমর,রাজু,মারুফ,নাজমুল, ফরিদ ও রানা। উপর মহলের সাথে সখ্যতা রেখে এলাকার কিছু ছেলে দিয়ে পাচার করে। এদের সাথে কোন রকম মতবিরোধ হলে বা ওদের কূ-কর্মে বাধা দিলে এমনিতেই মিথ্যা মামলায় নিরীহ মানুষকে হয়রানি করে। আর হয়রানিতে বনবিভাগের কিছু অসাধু লোক এমন জঘন্যতম কর্মকান্ডকে সহায়তা করে। তার মধ্যে বিষ দিয়ে মাছ মারা, অবৈধভাবে গোলপাতা কাটানো, হরিন মারা ও অভয়ারণ্যে বেশি টাকার বিনিময়ে মাছ মারা উল্লেখযোগ্য। ভোজনখালীর গোড়ায় ও কিছু অসাধু ব্যবসায়ী আছে। মোবাইল ফোনে জনগনের এ অভিযোগের কথা টাইগার টিমের সদস্যরা স্বীকার করেন। এস,ও মোঃ আনোয়ার হোসেনের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, সাথে থাকা অন্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা নেওয়া হবে। মামলা সম্পর্কে জানতে চাইলে বলেন, ১৩/ঢামা/অব ২০১৯-২০।তারিখ ২৮/০৪/২০২০। বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ নিরাপত্তা আইন ২০১২ এর (২৯) খ ধারায় মামলা হয়েছে। আসামী ধরা সহ অন্যান্য প্রশ্নের কোন সদুত্তর দিতে না চেয়ে এড়ানোর ভঙ্গিতে বলেন, আমার একটু কাজ আছে বলে সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করেন। এলাকাবাসী এমন অপকর্মের ঘোর বিরোধীতা করেন,একইসাথে এস,ও মোঃ আনোয়ার হোসেনের কর্মকান্ডের প্রতি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..