লাইফস্টাইল

সন্তান লাভ হবে কি হবে না, কী বলছে জ্যোতিষ শাস্ত্র!

  জাগোকন্ঠ ২৩ জুলাই ২০২২ , ৪:২২ পূর্বাহ্ণ

সন্তান-সুখ কে না চান? অভিভাবকরা তাঁদের পুত্র বা কন্যার বিবাহ দেন তাদের সুখী দাম্পত্য জীবনের আশা নিয়ে। দাম্পত্য জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সন্তান-সুখ বা সন্তানের জন্মদান। বিয়ের পর প্রত্যেক দম্পতিই কামনা করেন, তাঁরা যেন সুস্থ সন্তানের জন্ম দিতে পারেন। সকলের ক্ষেত্রে কিন্তু এই আশা পূর্ণ হয় না। কিছু ক্ষেত্রে দেখা যায় যে, প্রাকৃতিক ভাবে তো নয়ই, এমনকি উন্নত চিকিৎসা বিজ্ঞানের সহায়তা নিয়ে প্রচুর খরচ করেও সন্তানের জন্ম দিতে ব্যর্থ হচ্ছেন। সন্তান-সুখ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। বিয়ের আগে চিকিৎসা বিজ্ঞানের বিভিন্ন পরীক্ষার সঙ্গে যদি উভয়ের জন্মছকের সঠিক বিচার করে দেখা হয়, পরস্পরের যৌন সম্বন্ধ প্রজননের অনুকূল কি না তা হলে সন্তানহীনতার অভিশাপ থেকে মুক্তি মেলে।

পরস্পরের যৌন সম্বন্ধ সুপ্রজননের উপযুক্ত কি না, তা দেখতে প্রথমেই উভয়ের চন্দ্র, বৃহস্পতি, শুক্রের বিচারের প্রয়োজন। একজনের চন্দ্রের সঙ্গে অপরের বৃহস্পতির সুসম্পর্ক সুপ্রজনন নির্দেশ করে। একজনের চন্দ্র বা বৃহস্পতি অন্যজনের শুক্রের সঙ্গে শুভ সম্বন্ধ হলে তা সুপ্রজননের ইঙ্গিত দেয়। এর বিপরীত হলে প্রজননে ব্যাঘাত সৃষ্টি হতে পারে। একজনের চন্দ্র এবং বৃহস্পতি যদি অন্যের একাধিক গ্রহের দ্বারা পীড়িত হয় (বিশেষত শনি, পাপ বুধ, কেতু) সে ক্ষেত্রে সন্তানের জন্মদানে বাধা সৃষ্টি করে। একজনের চন্দ্র এবং বৃহস্পতি যদি অন্যের রবি, মঙ্গল এবং রাহুর দ্বারা পীড়িত হয়, সে ক্ষেত্রে সন্তানহানির ইঙ্গিত দেয়। একজনের পঞ্চম ভাব অপরের রবি, মঙ্গল, রাহু বা অষ্টম পতির দ্বারা পীড়িত হয়, সে ক্ষেত্রে সন্তান ক্ষেত্র পীড়িত হয়। উভয়ের পঞ্চম স্থান সূক্ষ্ম বিচার করা প্রয়োজন। উভয়ের পঞ্চম স্থান অশুভ হলে সন্তান ক্ষেত্র পীড়িত বলা যায়।

একজনের পঞ্চম স্থান বা পঞ্চম পতির সঙ্গে অন্যের ষষ্ঠ, অষ্টম বা দ্বাদশ পতির সম্পর্ক অশুভ। একজনের পঞ্চম ভাবের সঙ্গে অন্যের বৃহস্পতি, চন্দ্রের এবং শুক্রের সম্পর্ক প্রজননের ক্ষেত্রে শুভ। একজনের পঞ্চম স্থান বা পঞ্চম পতির সঙ্গে অন্যের লগ্নপতির বা লগ্নের শুভ সম্পর্ক শুভ। পুরুষের বীজ স্ফুট এবং স্ত্রীর ক্ষেত্রে ক্ষেত্র স্ফুটের সূক্ষ্ম বিচার প্রজনন সম্পর্কিত শুভ অশুভ ইঙ্গিত দিতে পারে।

প্রজনন সম্পর্কিত বিচার জ্যোতিষ শাস্ত্রের খুবই সূক্ষ্ম বিচার, প্রয়োজনে বিবাহের পূর্বে অভিজ্ঞ জ্যোতিষীর সহিত পরামর্শ গ্রহণ বিধেয়।

আরও খবর: