1. mdmobinali112@gmail.com : admin2020 :
  2. mdalimobin112@gmail.com : Ali Mobin : Ali Mobin
বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০২:৩৯ পূর্বাহ্ন

শরীয়তপুরে ৪০ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা করলেন ইকবাল হোসেন অপু |জাগোকণ্ঠ

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১১ মে, ২০২০

শরীয়তপুর প্রতিনিধি: শরীয়তপুরে ৪০ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা করলেন ইকবাল হোসেন অপু । বৈশ্বিক করোনা মহামারির (কোভিট-১৯) কারনে বিশ্ব মন্দায় পৃথিবী। এ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের কর্মহীন ও নিন্ম আয়ের মানুষের জীবন-জীবিকা আজ সংকটে। প্রায় ৪০ হাজার কর্মহীন ও অসহায় পরিবারকে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিয়েছেন শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু। তার নির্বাচনী এলাকা পালং- জাজিরার ৭০ হাজার অসহায় পরিবারকে পর্যায়ক্রমে খাদ্য সহায়তা দেওয়ার পরিকল্পনাও রয়েছে। চলতি মাসের মধ্যেই বাকি পরিবারের ঘরে পৌঁছে দিবেন এ খাদ্য দ্রব্য বলে জানান তিনি ।

জনাযায়, গত দুই মাস যাবত মানুষের ঘরে ঘরে এমপি অপুর পক্ষে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে । সরকারি ত্রান সহায়তার পাশাপাশি নিজস্ব অর্থায়নে এবং তার পিতার নামে প্রতিষ্ঠিত আলহাজ অ্যাডভোকেট সুলতান হোসেন মিয়া ফাউন্ডেশনের পক্ষে ৪০ হাজার পরিবারকে এ খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন সাংসদ ইকবাল হোসেন অপু। ৫-১০ কেজি চাল, মুশর ডাল, ভোজ্য তেল, আটা, আলু, পেঁয়াজ, চিনি, লবন, চিড়া, মুড়ি, ছোলা, সাবান রয়েছে প্রতিটি প্যাকেটে। রমজানের শুর থেকে জেলা শহর ও এর আশে পাশে ইফতারের পূর্বে রোজাদার পথচারি ও শ্রমিকদের হাতে ইফতারির প্যাকেট তুলে দিচ্ছেন ইকবাল হোসেন অপুর পক্ষে তার কর্মীরা। ইতোমধ্যে সুলতান হোসেন মিয়া ফাউন্ডেশনের পক্ষ্যে তার নির্বাচনী এলাকার বিভিন্ন মসজিদের ঈমাম ও মুয়াজ্জিনদের খাদ্য সামগ্রী উপহার দেওয়া হয়।
শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু জাগোকণ্ঠকে বলেন- ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আমি মার্চ মাস থেকেই আমার নির্বাচনী এলাকায় সরকারের স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী সকল প্রকারের সচেতনতামূলক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে আসছি। দেশে লকডাউন ঘোষনার আগে থেকেই আমার এলাকায় ত্রান সহায়তা প্রদান করে আসছি। আমি নিজের অর্থায়নে একটি ত্রান তহবিল গঠন করেছি। সেখানে আমার কিছু বন্ধু-বান্ধব ও শুভাকাঙ্খিরা সাধ্যমত সহায়তা করেছে। আমার নির্বাচনী এলাকায় দুইটি পৌরসভা ও ২৫টি ইউনিয়ন রয়েছে। সেখানে প্রায় ৬০-৭০ হাজার পরিবার কর্মহীন হয়ে পরায় আমি প্রত্যেক পরিবারকে আমার তহবিল ও আমার বাবার নামে প্রতিষ্ঠিত ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের ব্যানারে সব ধরনের সহায়তা প্রদান করে যাচ্ছি।’
অপু আরো বলেন, ‘আমি সংগঠনের সকল স্তরের নেতা-কর্মীদের সমন্বয়ে স্বেচ্ছাসেবী টিম গঠন করে দিয়েছি। তারা আমার নির্বাচনী এলাকার অসহায়, দু:স্থ ও অনাহারী মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিচ্ছে। পালং-জাজিরার একটি মানুষও যেন অভুক্ত না থাকে সে জন্য আমি অন্তত ৭০ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রদানের কর্মসূচি গ্রহণ করেছি। অগ্রাাধিকার ভিত্তিতে প্রায় ৪০ হাজার মানুষের ঘরেই খাদ্য সহায়তা পৌঁচেছে। অনেক পরিবারে একাধিকবারও সহায়তা পৌঁছানো হয়েছে। জুন মাসের আগে আরো ২৫-৩০ হাজার মানুষকে সহায়তা করতে পারবো ইনশা আল্লাহ।’
তিনি বলেন, ‘আল্লাহর রহমতে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিশ্ব মানবতার জননী, দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রাজ্ঞ নেতৃত্বে অচিরেই আমরা এই ভয়াবহ করোনা যুদ্ধে দেশকে নিরাপদ করতে সক্ষম হবো। আমি আমার নির্বাচনী এলাকার সকল নাগরিককে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘরে থেকে সামাজিক ও শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখে চলতে অনুরোধ করছি।’

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..