1. mdmobinali112@gmail.com : admin2020 :
  2. mdalimobin112@gmail.com : Ali Mobin : Ali Mobin
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন

শরীয়তপুরের নাওডোবায় মহিলা ইউপি সদস্য প্রতিবন্ধি ভাতার টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ! |জাগোকণ্ঠ

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৮ অক্টোবর, ২০২০

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:

শরীয়তপুর জেলার জাজিরা থানার সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড ১,২,৩,ইউপি সদস্য মোসাঃ ছালমা বেগমের প্রতিবন্ধি ভাতার টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ পাওয়াগেছে। স্থানীয়রা জানায় মহিলা মেম্বার ছালমা টাকা ছারা কিছুই বোঝে না, টাকা ছারা কোন কাজ করে না, সে বয়স্ক ভাতা এবং প্রতিবন্ধি ভাতা কার্ড পাইয়ে দেয়ার নামে অন্তত ৫০ ব্যাক্তির কাছ থেকে ৪/৫হাজার টাকা করে অগ্রিম ঘুষ নিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।যারা তাকে অগ্রিম ঘুষ দিতে পারেনি তাদের কে সে বয়স্ক ভাতা এবং প্রতিবন্ধি ভাতার টাকা ব্যাংকে জমার পরে তা উত্তোলন করে তাকে দিতে হবে বলে চুক্তি করে নেয়।খোজ নিয়ে জানা গেছে মোঃ ইলিয়াস তালুকদার পিতা ছবর আলী তালুকদার সে ৩নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা তার প্রতিবন্ধি ভাতার আইডি কার্ড নং-০১০৩২৫৭৫ বই নং ১৭০৮ তার সাথে মহিলা মেম্বার ছালমা প্রতিবন্ধি কার্ড করে দিবে ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলনের পর তাকে সেখান থেকে অর্ধেক টাকা দিতে হবে চুক্তি করে। সেই মোতাবেক উক্ত ব্যাক্তির সাথে ছালমা ব্যাংকে গিয়ে প্রতিবন্ধি ভাতার ৯ হাজার টাকা উত্তোলনের পর প্রতিবন্ধিকে মাত্র ২ হাজার টাকা দিয়ে বাকী ৭ হাপজার টাকা সে একাই নিয়ে যায়।টাকা নিয়ে সে প্রতিবন্ধিকে বলেন এরপর যত টাকা আসবে সেখান থেকে তাকে আর কোন ভাগ দিতে হবে না।প্রতিবন্ধি ইলিয়াছ তালুকদার সরকারী প্রতিবন্ধি ভাতার টাকা হাতে পেয়েও বাড়ি পর্যন্ত সে টাকা নিয়ে যেতে পারলেন না ছালমা মেম্বারের কারনে। মনে কষ্ট নিয়েই বাড়ি ফেরেন তিনি।ছালমা বেগমের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ পাওয়ার পর এ বিষয়ে মুঠোফোনে কথা হয় নাওডোবা ইউনিয়নের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোঃ কাসেম বেপারির সাথে তিনি বলেন “সমাজ সেবা অফিস থেকে নাওডোবায় ১০০ প্রতিবন্ধি কার্ড ও ৪৩ টি বিধবা কার্ড দেয়া হয়েছে,এ কার্ড নিয়ে কোন অনিয়মের খবর আমি পাইনি, যদি ছালমা মেম্বার এ ধরনের দুর্নীতি ও অনিয়ম করে থাকেন তবে আমি চেয়ারম্যান হিসেবে পরিষদে তার বিরুদ্ধ ব্যাবস্থা নেব।এ বিষয়ে ছালমা বেগমের সাথে তার মুঠোফোনে কথা বললে তিনি ৪/৫ হাজার টাকার অগ্রিম ঘুষ নেওয়ার কথা অস্বীকার করে তবে বিধবা ভাতা ,প্রতিবন্ধি ভাতা,বয়স্ক ভাতার কার্ড করতে দৌড়ঝাপ করতে গাড়ীভারা বাবদ ১০০০ টাকা খরচ নিয়ে থাকেন বলে স্বীকার করেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..