1. mdmobinali112@gmail.com : admin2020 :
  2. mdalimobin112@gmail.com : Ali Mobin : Ali Mobin
বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৩৭ পূর্বাহ্ন

লালমনিরহাট পৌর নির্বাচন এখনেই সরগরম কে পাচ্ছে দলীয় মনোনয়ন

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আসাদুল ইসলাম সবুজ, লালমনিরহাট

পৌরসভার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হয়নি।
আর নয় মাস পর পৌরসভায় নির্বাচন স্থানীয় সরকারের অধীনে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত
হবে। ফলে লালমনিরহাট পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে মেয়র, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী আসনের
কাউন্সিলর পদের সম্ভাব্য প্রার্থীরা আগাম গনসংযোগ ও কৌশলে প্রচার-প্রচারনা শুরু করেছেন।
সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌঁড় ঝাঁপে পৌর এলাকা এখনেই সরগরম হয়ে উঠেছে। এ পৌর
নির্বাচনে আ’লীগের ৩ জন, বিএনপির ২ জনের নাম মাঠে-ঘাটে শোনা গেলেও জাতীয়
পার্টির কোন প্রার্থী নেই এ পৌর নির্বাচনে।
জানা গেছে, নির্বাচনের দিনক্ষন নির্ধারন না হলেও প্রার্থীদের দৌঁড় ঝাঁপে লালমনিরহাটে
নির্বাচনের আমেজ দিন দিন জমে উঠছে। ইতিমধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীরা পৌরবাসীর দোয়া
কামনা করে নিজেদের ছবি সম্বলিত পোষ্টার লাগিয়ে গোটা পৌর এলাকা ছাপিয়ে ফেলেছেন।
শহরের পাড়া মহল্লায় এখন নির্বাচনের আলাপ চারিতাই প্রাধান্য পাচ্ছে। ভোটারদের সমর্থন
নিতে তারা নিচ্ছেন নানা কৌশল। কোন পাড়ায় বা মহল্লায় কোন ব্যাক্তির মৃত্যু সংবাদ পেলেই
সম্ভাব্য প্রার্থীরা ছুটছেন মৃতের বাড়ীতে। এছাড়াও খেলাধুলা অনুষ্ঠান, সামাজিক
অনুষ্ঠান, কি মুসলীম, কি হিন্দু, কি খৃষ্টান, দিনমজুরের বাড়ীতে যেতেও প্রার্থীরা ভুল
করছেন না। পাড়া মহল্লায় উঠান বৈঠক, দোকানে দোকানে ছবি সম্বলিত প্রার্থীর প্রচারপত্র
বিলি করা হচ্ছে। এছাড়াও পৌর এলাকায় কোন ব্যাক্তির মৃত হলে তাদের বাড়ীতে গিয়ে তারা
পরিবারের লোকজনদের দিচ্ছেন শান্তনা। তবে ভোটাররা করছেন অন্য হিসাব নিকাশ। তারা হিসেব
কষছেন, অতীত ও ভবিষ্যৎ নিয়ে। অতীতে কে কি করেছেন এবং ভবিষ্যতে কার দ্বারা পৌর সভার
উন্নয়ন হবে এসব হিসেব কষতেও ভুল করছেন না সাধারন ভোটাররা। দলীয় ভাবে নির্বাচন করার
কারনে দলীয় মনোনয়ন পেতে সম্ভাব্য প্রার্থীরা দৌড়ঝাঁপ, লবিং, গ্রপিং শুরু করেছে। দলীয়
মনোনয়ন পেতে প্রার্থীরা উপজেলা, জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছেন।
তবে কে পাচ্ছেন আওয়ামী, বিএনপির মেয়র পদে মনোনয়ন। এনিয়ে চলছে পৌর শহর জুড়ে নানা
জল্পনা-কল্পনা। কে হচ্ছেন পৌরসভার আগামী দিনের পৌর পিতা, তা নিয়ে পৌরবাসী কৌতুহলের
শেষ নেই।
দলীয় সুত্রে জানা গেছে, আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগের যোগ্য ও
ত্যাগী নেতাদের প্রাধান্য দেবে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ। এ জন্য কেন্দ্রীয় ভাবে মেয়র মনোনয়ন
দিতে চাচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ। আর অপরদিকে রাজনৈতিক চ্যালেঞ্জ হিসেবে আসন্ন
পৌরসভা নির্বাচনে যাচ্ছে বিএনপি। ইতিমধ্যে দলের হাই-কমান্ডের কাছে সম্ভাব্য মেয়র
তালিকা যাচাই বাছাই চলছে। তবে বড় দুই দলের দাবী, যে সব প্রার্থী দলের জন্য যারা নিবেদিত
প্রাণ, দলীয় বিভিন্ন কর্মকান্ডে সক্রিয়ভাবে অংশ গ্রহন করে দলকে সামনে দিকে এগিয়ে নিয়ে
গেছে এমন ত্যাগী নেতাকে আগামী পৌরসভার নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন
দেওয়া হবে।
আসন্ন লালমনিরহাট পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে আগাম
প্রচারণা ও গণসংযোগে আ’লীগের ৩ জন, বিএনপির ২ জন মাঠে নামলেও এ নির্বাচনে
জাতীয় পার্টির কোন প্রার্থী থাকছেনা বলে নিশ্চিত করেছেন জেলা জাতীয় পার্টির
নেতাকর্মীরা। মেয়র পদে আওয়ামীলীগের যারা মাঠে নেমেছেন তারা হলেন, জেলা আওয়ামীলীগের
সদস্য, পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি, পরপর ২বার নির্বাচিত বর্তমান
পৌরসভার মেয়র মো. রিয়াজুল ইসলাম রিন্টু, জেলা যুবলীগের অর্থবিষয়ক সম্পাদক, চেম্বার অব

কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজের পরিচালক, বিশিষ্ট্য ব্যবসায়ী ও ঠিকাদার মো. রেজাউল করিম স্বপন এবং
পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজের সিনিয়র সহ-
সভাপতি কাজী নজরুল ইসলাম (কাজী)। মেয়র পদে বিএনপি থেকে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা
হলেন, পৌর বিএনপির সাবেক আহবায়ক, জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ও সাবেক পৌর চেয়ারম্যান
মো. মোশারফ হোসেন রানা এবং জাতীয়তাবাদী কর আইনজীবী ফোরামের সদস্য ও জেলা
বিএনপির সহ-অর্থবিষয়ক সম্পাদক মো. মজমুল হোসেন প্রামানিক।
এদিকে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী সব মেয়র প্রার্থীদের দাবী করে বলছেন,
তারা বিভিন্ন সময়ে আন্দোলন সংগ্রাম ও উন্নয়ন মুলক কর্মকান্ডে সামনে থেকে কর্মসুচি
পালন করেছে। নিজের যোগ্যতার অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আসন্ন পৌর নির্বাচনে নানা কৌশলে
বিভিন্ন মাধ্যমে দীর্ঘদিন থেকে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। তাই তাদের সবার বিশ্বাস
আর আশা দলীয় ভাবে মেয়র হিসেবে মনোনয়ন পাবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..