1. mdmobinali112@gmail.com : admin2020 :
  2. mdalimobin112@gmail.com : Ali Mobin : Ali Mobin
শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ০৭:৫১ পূর্বাহ্ন

নানা জটিলতায় পেছাচ্ছে চীনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৩ জুলাই, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: করোনা ভাইরাসের চীনা ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ বাংলাদেশে করা নিয়ে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। গত কয়েকদিনে সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে কথা চালাচালিতে এমন অবস্থা দেখা দিয়েছে।

বুধবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘চীনের ভ্যাকসিন আমাদের দেশে প্রয়োগ হবে কি না বা হলেও তা কবে হবে, সে বিষয়ে জাতীয় টেকনিক্যাল পরামর্শক কমিটির সঙ্গে পরামর্শ করেই সিদ্ধান্ত নেবে সরকার। এর এক দিন আগে স্বাস্থ্য সচিব আবদুল মান্নান এ বিষয়ে বলেছিলেন, ভ্যাকসিনের ট্রায়াল দুটি রাষ্ট্রের বিষয়। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে একটু সময় লাগবে।

এমন বক্তব্যে চীনের সিনোভেক কোম্পানির টিকা মাঠ পর্যায়ে ট্রায়াল থমকে গিয়েছে। আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণাকেন্দ্র, বাংলাদেশ (আইসিডিডিআরবি) এ টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগের জন্য কাগজপত্র জমা দিয়েছে। এমন একটি সময়ে মন্ত্রণালয়ের পরস্পরের কথা ওঠায় আইসিডিডিআরবির কেউ আনুষ্ঠানিকভাবে কথা বলতে নারাজ।

আইসিডিডিআরবির এর আগেও কয়েকটি টিকার সফল ট্রায়াল চালিয়েছে। কলেরার টিকাসহ আরও নানা ধরনের পরীক্ষা–নিরীক্ষার অভিজ্ঞতা প্রতিষ্ঠানটির রয়েছে।

জানা যায়, দুই সপ্তাহ আগেই চুক্তি হওয়ার কথা ছিল চীনের সিনোভেক বায়োটেকের সঙ্গে কিন্তু তা আজও সম্ভব হয়নি। সরকার পদক্ষেপ না নিলে চুক্তি ও টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ পিছিয়ে যেতে পারে বলে মত প্রকাশ করেছে বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে করোনার টিকা উদ্ভাবনের প্রতিযোগিতা চলছে বিশ্বজুড়ে। প্রতিযোগিতায় যারা এগিয়ে আছে তাদের মধ্যে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, চীন ও যুক্তরাজ্য। ভারতও রয়েছে টিকা উৎপাদনের তালিকায়। বাংলাদেশেও উদ্ভাবনের কাজ চালাচ্ছে। উৎপাদনের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে ওষুধ কারখানাগুলো টিকা নিয়ে বিভিন্ন দেশে নানা রকম হিসাব–নিকাশ চলছে। বাণিজ্যিক বা আন্তর্জাতিক সম্পর্কের উপরে এখন রাজনৈতিক বিষয় গুলো বিবেচনায় নিয়ে আসছে শক্তিধর দেশ গুলো।
গত ১৯ জুলাই বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিল (বিএমআরসি) আইসিডিডিআরবিকে টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগের নৈতিক অনুমোদন দিতে গিয়ে কাউন্সিলের চেয়ারম্যান সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী বলেন, পরীক্ষামূলক প্রয়োগের সিদ্ধান্ত দেবে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তর। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে কাগজ পাঠানো হয়েছে।

এ টিকাটি চীন থেকে আমদানি ও ব্যবহারের জন্য ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের অনুমোদন দরকার হবে। আবার হাসপাতালে ব্যবহারের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনুমতিরও প্রয়োজন।

বিএমআরসি জানিয়েছে, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বার্ন ইউনিট–১, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ইউনিট–২, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতাল এবং ঢাকা মহানগর হাসপাতালের চার হাজার ২০০ কর্মীর শরীরে এ টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ হবে। তবে সরকার অনুমতি দিলে ঢাকায় নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত প্রথমে এই টিকা গ্রহণ করবেন।

চীনা এই টিকার তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা শুরু হবে সৌদি আরব, ব্রাজিল, ইন্দোনেশিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকায়।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..