1. mdmobinali112@gmail.com : admin2020 :
  2. mdalimobin112@gmail.com : Ali Mobin : Ali Mobin
বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০৪:০০ পূর্বাহ্ন

কবে ফিরছে ক্রিকেট; সবচেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ-ভারত |জাগোকণ্ঠ

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৫ জুলাই, ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক :

ক্রিকেটের জন্মদাতা ইংল্যান্ড। মহাসংকটে আবারও তারাই ত্রাতা হয়ে এসেছে। ক্রিকেট ফিরিয়েছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে খেলছে টেস্ট সিরিজ। যদিও প্রথম ম্যাচে হেরে ফেরাটা ভাল হয়নি। ক্যারিবিয়ানরা জয়ের আনন্দে ভেসেছে। জয়-পরাজয় যাই হোক না কেন ক্রিকেট ফিরেছে এটাই বড় পাওয়া বিশ্বের জন্য। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর পাকিস্তান আর আয়ারল্যান্ডের সাথেও সিরিজ খেলবে ইংল্যান্ড। অনুশীলন শুরু করেছে আফগানিস্তান, সাউথ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া ও সবশেষ নিউজিল্যান্ড। সিপিএলের পর বিগ ব্যাশেরও সূচি ঠিক হয়ে গেছে। এশিয়াতে সবার আগে ক্রিকেট ফিরিয়েছে শ্রীলঙ্কা। করোনার সক্রমন কম থাকায় তারা অনুশীলন ক্যাম্প করেছে জুনে। বাংলাদেশ না যাওয়ায় সিরিজে নামা হয়নি চান্দিমাল, মাথিউসদের। আস্তে আস্তে সারা বিশ্বে ক্রিকেট ফিরছে তাহলে কেন বাংলাদেশ-ভারতে নয় ? ভারতে প্রতিদিন মারা যাচ্ছে ‘৪শ থেকে ৫’শ মানুষ। অন্যদিকে বাংলাদেশে মৃত্যুর হার কম থাকলেও, সক্রমন বাড়ছে জ্যামেতিক হারে। সেজন্যই বোর্ডের অপেক্ষা হার কমার। অন্যদেশগুলোর মতো সক্রমনের হার নিচের দিকে নামা শুরু করলেই কেবল সম্ভব ক্রিকেট ফেরানোর চিন্তা করা। গেল কয়েকদিন ক্রিকেট বোর্ডে কর্তারা বারবার বলেছেন তারা প্রস্তত হচ্ছেন ক্রিকেট ফেরাতে। ঈদের পর প্রিমিয়ার লিগ শুরু করতে চান। যদি পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়। বিসিবি অপারেশনস চেয়ারম্যান আকরাম খান জানান- বিসিবি অপেক্ষা আছে, করোনা পরিস্থিতি গভিরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। একটু উন্নতি হলেই খেলা শুরু করা হবে। ব্যক্তিগত অনুশীলনের জন্য অবশ্য বিসিবি আটটি ভেন্যুর দরজা খুলে দিয়েছে। দেশের যেখানেই থাকুক না কেন ক্রিকেটাররা, সেই আট ভেন্যু ব্যবহার করতে পারবেন। ঢাকায় থাকা ক্রিকেটাররা চাইলে মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটেও অনুশীলন করতে পারনেন। এনামুল হক বিজয়, শামসুর রহমান শুভ মিরপুরে রানিং করেছেন। সাদমান ইসলাম অনিক মিরপুর স্টেডিয়ামে যাচ্ছেন রিহ্যাবের কাজ ঠিকঠিক করতে। সময়ের সাথে ক্রিকেটাররা মানিয়ে নিতে চাইছেন নতুন পরিস্থিতির সাথে। তামিম-মুশফিক-মাহমুদুল্লাহরা বরাবরই বলে আসছেন মাঠে ফিরতে মরিয়া হয়ে আছেন। বোর্ডও চাইছে ক্রিকেটারদের ফেরাতে। তবে সামনে কোন উপলক্ষ্য না থাকায় কোন ক্যাম্প শুরুর চিন্তা ভাবনাও করা যাচ্ছে না। পাঁচটা আন্তর্জাতিক সিরিজ এরই মধ্যে স্থগিত হয়েছে। এশিয়া কাপও হচ্ছে না। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ তো নিশ্চিতভাবেই স্থগিত হবে। সবকিছু মিলিয়ে অনিশ্চিত ভবিষত। এবছর আর আন্তর্জাতিক ম্যাচ নাও খেলা হতে পারে বাংলাদেশের। যদি হয় তাও ডিসেম্বরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ । তাইতো ক্রিকেটার, বিসিবির লিগ কমিটির লক্ষ্য ঘরোয়া লিগগুলো ঠিকঠাক আয়োজন করা। বিসিবি মিডিয়া কমিটির চেয়াম্যান জালাল ইউনুস জানান- প্রিমিয়াল লিগ দিয়েই শুরু হবে দেশের ক্রিকেট। আগামী দুই মাস খুব গুরুত্বপূর্ণ। অবস্থান উন্নতি না হল খেলা শুরু করা সম্ভব নয়। আর যদি উন্নতি হয় তাহলে প্রিমিয়ার লিগ, জাতীয় ক্রিকেট লিগ ও বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ আয়োজন করা হবে। অন্যদেশকে অনুসরন করে ফেরার চিন্তা বিসিবির তবে তার জন্য দরকার করোনা পরিস্থিতির উন্নতি। ক্রিকেটার, বোর্ড কর্তা, সিসিডিএম কর্তাদের চোখ সেই করোনার দিকে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..