ক্যাম্পাস

ইবির আরবি সাহিত্য বিভাগের এম এ ২০-২১ শিক্ষাবর্ষের বিদায় অনুষ্ঠান

  জাগোকন্ঠ ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২ , ৬:১৯ অপরাহ্ণ

নাইমুর রহমান বিপ্লব, ইবি প্রতিনিধি
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের এম এ ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ২৭ তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানটি রোববার সকাল ১০ টায় অনুষদ ভবনের ৪২৬ নং রুমে আয়োজন করা হয়।
জানা যায়, বিদায়ী শিক্ষার্থীদের মেধা, খেলাধুলা, সাংবাদিকতা, উদ্যোক্তা, রোভার স্কাউট, বিএনসিসি সহ বিভিন্ন বিষয়ে অবদান রাখার জন্য তাদের কে পুরস্কৃত করেন বিভাগটি। প্রতিটা ক্যাটাগরিতে ৩.২.১ হারে মোট ৯ জন কে পুরস্কার প্রদান করা হয়। এছাড়াও বিদায়ী শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বিভাগের জন্য ডিনার সেট এবং প্রতিটা শিক্ষকদের জন্য একটি করে ঘড়ি প্রদান করেন তারা। এছাড়াও শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সমন্বিত আয়োজনে দোয়া মোনাজাত এবং গেট টুগেদার করা হয়।
অনুষ্ঠানের সভাপতি প্রফেসর ড. আব্দুল মোত্তালিব এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ, প্রফেসর ড. আব্দুল মালেক, প্রফেসর ড. মোহাঃ তোজাম্মেল হোসেন উপস্থিত ছিলেন, এছাড়া অনুষ্ঠানটির পরিচালনা করেন প্রফেসর ড. এ কে এম মফিজুল ইসলাম ও প্রফেসর ড. শামসুল হক সিদ্দিকী। এসময় বিভাগের অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।
বিদায়ী শিক্ষার্থী নাসিরা আক্তার মিমি বলেন,
প্রায় অর্ধযুগ কাটিয়েছি এই শ্যামল সবুজ ছায়াঢাকা অঙ্গনে।  বিদায়ের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে অনেক স্মৃতি উকি দিচ্ছে মনে। চলে যাবো ভাবতেই চোখে ভিড় করে নোনাজল। বন্ধু- বান্ধবীদের সাথে দুষ্টুমি,খুনসুটি আর হবেনা।  শ্রদ্ধাভাজন শিক্ষকদের সাহচর্য আর পাবোনা। এই অনুষদ ভবনে, আমার প্রিয় প্যারাডাইস রোডে, মফিজ লেকে,ডায়না চত্বরে আমার পায়ের ধুলি পড়বে না। ভাবতেই অবাক লাগে। বিদায় এতোটা নিষ্ঠুর হয় কেন! প্রিয়জন প্রিয়স্থান থেকে দূরে ঠেলে দেয় কেন!
বিদায়ী শিক্ষার্থী নজরুল ইসলাম বলেন, চির সবুজে ঘেরা এই ক্যাম্পাস জীবনের সর্বশ্রেষ্ঠ মুহূর্ত গুলো কাটিয়েছি। শ্রেণীকক্ষের আড্ডা থেকে শুরু করে বিভাগের করিডোর, ডায়না চত্তর, টিএসসি, খেলার মাঠ, হলের টিভি রুম, বঙ্গবন্ধু হলের পুকুর পাড়, পেয়ারা বাগান, মফিজ লেক, ঝাল মুড়ি চত্তর সহ  ক্যাম্পাসের প্রতিটি জায়গায় বন্ধুদের সাথে বিচরণ করেছি। শিক্ষার্থীদের নায্য দাবি আদায়ে লক্ষে সকল স্থরের ছাত্রদের সাথে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেছি। ক্যাম্পাস জীবনের এই শেষ লগ্নে এসে বন্ধুদের সাথে কাটানো প্রতিটি স্মৃতি বিজড়িত মুহূর্ত গুলো মনের মধ্যে বারবার উঁকি দিচ্ছে। প্রিয় বন্ধুদেরকে অনেক মিস করব। ভালো থাকুক প্রিয় মানুষ গুলো, স্বপ্নের রং দিয়ে রঙ্গিয়ে তুলুক তাদের কর্মময় জীবন। যে যেখানেই থাকুক, স্রষ্টা সবাইকে ভালো রাখুক, সুস্থ রাখুক, নিরাপদ রাখুক, এই প্রত্যাশা কামনা করি।
সভাপতির বক্তব্যে প্রফেসর ড. আব্দুল মোত্তালিব বিদায়ী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য বলেন, আজ থেকে আরবি ভাষার  ২৭ তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদেরকে একটা চ্যালেঞ্জ এর মূখে ছেড়ে দিচ্ছি, যাতে তোমাদের দ্বারা সমাজ উপকৃত হয়, এর মধ্য দিয়ে আমাদের শিক্ষাদান করা সাফল্যমণ্ডিত হবে। তোমাদের মাঝে যে আইকন বা যোগ্যতা রয়েছে সেগুলাকে কজে লাগিয়ে তোমারা তোমাদের জীবনের সাফল্য বয়ে নিয়ে আসবে।, বিদায়ী শিক্ষার্থীদের কে অনুরোধ করে আরো বলেন তোমারা তোমাদের পিতামাতার প্রতি সদা সর্বত্র দয়াবান হবে।
তথ্য সূত্রে জানা যায়, এবছর আরবী ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ থেকে মোট ৫৮ জন শিক্ষার্থী এম এ পরিক্ষা দিয়ে বিদায় নিয়েছে,  তন্মধ্যে মাসুম সরকার, নাইম বিল্লাহ, জমির উদ্দিন, মনিরুজ্জামান, মেহেদী হাসান, ইসহাক তালুকদার, জসিমউদদীন, আরিফুল ইসলাম, আবু মুসা, এনামুল হক, মেহেদী হাসান, আবুল আউয়াল, নাজমুল হোসেন, সাকিব হুসাইন, রুহুল আমীন, আবু নোমান, আব্দুর রশীদ, মিজানুর রহমান, রফিকুল ইসলাম, ইমরান আহম্মেদ, নজরুল ইসলাম, উসামা বিন জাহিদ, ইমরান হোসাইন, নাসরুল্লাহ আল হাসিব, আহসান হাবিব সজল, এসএম হাসান আতিক, হাবিবুর রহমান, আল ইমরান, তারেকুল ইসলাম, শাহীন আলম, উবাইদুল হক, শিবলী আল সাদিক, আব্দুস সালাম, নূর মোহাম্মাদ, আবুল কাশেম, আব্দুল আহাদ, আমীর সোহেল, সানাউল্লাহ পানি, হাফিজুর রহমান, আশিকুর রহমান, আমিমুল ইহসান, আবু সাইদ ওয়ালিউল্লাহ, নাসিরা মিমি, জাকিয়া খাতুন, নাসরিন সুলতানা, মাবিয়া হোসেন ওমি, সুমাইয়া খাতুন, তামান্না ইয়াসমিন হাবিবা, তানহা খাতুন, সাইমা সুলতানা, হাসিনা খাতুন, সাবিকুন নাহার, ইসরাত জাহান, সায়েদাতুন ন্নেসা, শারমিন খাতুন, আবুল কাশেম সিরাজী, আতিকুর রহমান, সাইফুল ইসলাম।

আরও খবর: